সেরা স্বাস্থ্য টিপস জানুন সুস্থ্য থাকুন

সুস্থ্য থাকার উপায় 3

প্রিয় পাঠক, আশা করি সুস্থ্য আছেন। আপনাদের সুস্থ্যতাই আমাদের একান্ত কাম্য।তাই আপনাদের জন্য আজকে নিয়ে এসেছি সুস্থ্য থাকার ও ভালো স্বাস্থ্য বজায় রাখার কয়েকটি সেরা আধুনিক স্বাস্থ্য টিপস! সেরা স্বাস্থ্য টিপস জানুন সুস্থ্য থাকুন ; আমরা আশা করি আপনারা উপকৃত হবেন।

প্রিয় পাঠক, আমরা সকলেই জানি ‘স্বাস্থ্য সকল সুখের মূল’ কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো; আমারা স্বাস্থ্য টিপস বা কোনো প্রকার স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলি না; অথবা আমরা স্বাস্থ্য বিধি বা স্বাস্থ্য টিপস সম্পর্কে কোনো প্রকার ধারণা রাখি না; ফলে আমাদের অজ্ঞতা বশত আমাদের অকালে বা অসময়ে স্বাস্থ্য হানি ঘটে। তো চলুন আর দেরি না করে; কয়েকটি সহজ ও সেরা আধুনিক স্বাস্থ্য টিপস কি কি তা জেনে নিই এবং যথাযথ পালন করার চেষ্টা করি।

সকালে খালি পেটে বিশুদ্ধ পানি পান করার সেরা স্বাস্থ্য টিপস

আমাদের দিনগুলো শুরু হয় সকাল দিয়ে। তাই সকালের স্বাস্থ্য টিপস মানা আমাদের জন্য খুব জরুরি! সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরেই খালি পেটে পানি পান করুন এটা অত্যন্ত উপকারি স্বাস্থ্য টিপস। এর ফলে; অনেক প্রকার রোগ থেকে শরীরকে সহজেই মুক্ত রাখা যায় এবং আপনার শরীর কে সতেজ রাখতে সকালে খালি পেটে পানি পান করার বিকল্প কিছু নেই। ঠিক এ কারনেই বিশেষজ্ঞরা সকালে এক গ্লাস বিশুদ্ধ পানি পানের পরামর্শ দিয়ে থাকেন ! এছাড়া সকালে খালি পেটে পানি পান করলে আরো অনেক উপকার পাবেন! তাই সকালে পানি পান করার অভ্যাস হতে পারে আপনার জন্য সেরা স্বাস্থ্য টিপস । চলুন জেনে নিই সকালে পানি পানের কয়েকটি উপকারিতা :

  • রাতে একটানা ঘুমের কারণে হজম প্রক্রিয়ার কোনো কাজ হয় না। অতএব; সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর পানি পান করলে হজম প্রক্রিয়া দ্রুত হয় এবং হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়।
  • প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ১ গ্লাস কুসুম গরম পানি খেলে শরীরের মেটাবলিজম বাড়ে।
  • সকালে ১ গ্লাস পানি পান করলে শরীরের রক্ত থেকে দূষিত পদার্থ দূর হয়।
  • ঘুম থেকে উঠে নিয়মিত পানি পান করার ফলে ত্বক হয়ে ওঠে সুন্দর ও উজ্জ্বল।
  • প্রতিদিন সকালে নাস্তার আগে খালি পেটে পানি পান করলে শরীরের পেশী ও কোষ তৈরি হয়।
  • সকালে পানি পানের অভ্যাস কিডনির সমস্যা, মাসিকের সমস্যা, বমি বমি ভাব, ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন রোগে বিশেষ উপকার করে।
  • প্রতিদিন সকালে খালি পেটে পানি পান করলে কোলন পরিষ্কার থাকে; এবং কোষ্ঠকাঠিন্য উপশম হয় এবং মলত্যাগ আরামদায়ক হয়।

সুস্থ্য স্বাস্থ্য পেতে তাজা ফল খেতে হবে

আমার অনেকেই মনে করি যে শুধু ভাত-মাছ খেলেই আমাদের খাদ্যর সকল চাহিদা পূরণ হবে, কিন্তু এ ধারণা সঠিক নয়। তাই প্রতি বেলা ভাত তড়কারীর উপর ঝাাঁপিয়ে না পরে; তাজা ফল খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। কাঁচা-পাকা ফল ভিটামিন সি সমৃদ্ধ; আর ভিটামিন এ সহ প্রায় সব ধরনের ভিটামিনই রয়েছে। ভিটামিন সি ত্বককে সুন্দর রাখে এবং আমাদের চেহারার সৌন্দর্য বাড়ায়! কিন্তু; তাপে ভিটামিন সি নষ্ট হয়ে যায়; যে কারণে আমরা যদি শুধুমাত্র রান্না করা খাবারের উপর নির্ভর করি তবে আমরা এই সমস্ত প্রয়োজনীয় পুষ্টি থেকে বঞ্চিত হব! তাই সুস্থ শরীর ও সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে চাইলে প্রতিদিন তাজা ফল খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে এবং সেরা স্বাস্থ্য টিপস জানুন সুস্থ্য থাকুন।

সর্বোত্তম স্বাস্থ্য পেতে নিয়মিত ব্যায়াম করুন

আমরা সবাই জানি কিভাবে ব্যায়াম করতে হয়? কিন্তু দুঃখের বিষয়, আমরা এই ফ্রি হেলথ টিপসগুলো মানতে রাজি নই। কারণ ব্যায়ামের উপকারিতা কি; কখন ব্যায়াম করা ভালো; সঠিক ব্যায়ামের নিয়ম আমরা জানি না। ফলে আমরা অনেকেই কয়েকদিন ব্যায়াম করলেও তারপর আর আগ্রহ থাকে না। তাই ব্যায়ামের গুরুত্ব মাথায় রাখুন। নিয়মিত শারীরিক কার্যকলাপ এবং ব্যায়ামের ফলে; শরীরের ওজন একই থাকে। উচ্চ রক্তচাপ কমে যায়।

সুস্বাস্থ্য পেতে হলে পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে

আমরা যখন ক্ষুধার্ত থাকি, তখন আমরা কিছু বিবেচনা না করে বা খাবারের পুষ্টিগুণ বিচার না করেই খাই। আবার অনেকে মনে করেন; পুষ্টিকর খাবার মানেই দামি খাবার। এ ধারণা মোটেও সঠিক নয়। আমাদের দেশে খুবই কম দামে পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যকর খাবার পাওয়া যায়। এর মধ্যে শাকসবজি অন্যতম। তাছাড়া রাস্তার পাশে খোলা খাবার খেলে আমাদের স্বাস্থ্য বিপন্ন হতে পারে। তাই খাবারের গুণাগুণ নিয়ে আমাদের সবসময় সচেতন থাকতে হবে। অতিরিক্ত তৈলাক্ত চর্বি পরিহার করতে হবে।

হেলথ টিপস মেনে ওজন কমাতে হবে

  • সবুজ চা: একটি গবেষণা প্রতিবেদনে দেখা গেছে যে; 1 দিনে মাত্র চার কাপ গ্রিন টি বা গ্রিন টি পান করলে শরীরে 400 ক্যালরি বার্ন হতে পারে। ফলে; এটি ওজন ঠিক রাখে।
  • আপনি দিনে ঘুমাবেন না – আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা দিনের বেলা ঘুমান। কিন্তু এর ফলে ওজন বৃদ্ধি একটি সমস্যা। তাই; একটি নিয়ম হিসাবে আপনাকে রাতে ৬-৮ ঘন্টা ঘুমাতে হবে।
  • মশলাদার খাবার: শুধুমাত্র সেদ্ধ খাবার কখনোই খাওয়া উচিত নয়। আবার; জিরা গুঁড়া; হলুদ; ধনেপাতার মতো মশলা নিয়মিত খেতে হবে; কারণ, এগুলো ওজন কমায়।
  • পানীয় জল এবং তরল: জল ওজন কমাতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বিশেষ করে; পানি আমাদের শরীর থেকে অতিরিক্ত টক্সিন বের করে দেয়।
  • আমরা অনেকেই বসে বসে কাজ করি। তবে সব কাজ পায়ে হেঁটে না করাই ভালো। উদাহরণস্বরূপ, আপনি ফোনে কথা বলার সময় বা বই পড়ার সময় হালকা হাঁটতে পারেন।
  • মিষ্টি বা চিনিযুক্ত খাবার ত্যাগ করতে হবে। কারণ; চিনি থেকে অতিরিক্ত ক্যালরি শরীরে জমা হতে পারে এবং ওজন বাড়াতে পারে।

আরো বিভিন্ন ধরনের প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য টিপস পেতে আমাদের ফেসবুক পেজ লাইক এবং ফলো করুন।

3 Comments

  1. Very Good Information…

    MD KARIMUL ISLAM
  2. আমি আপনাদের অনেক পুরোনো ক্লাইন্ট আমাদের অফিসিয়াল ও পরিবারের অনেক কিছুই কেনা হয় তবে ব্লগ আগে ছিল না এখন দেখে অনেক ভালো লাগলো আশাকরি এ রকম আরো স্বাস্থ্য বিষয়ক লিখবেন।

    SULTAN MAHAMUD
    1. Thanks Sir
      Stay Aleef Surgical
      Mail us your more important feedback
      Email: admin@aleefsurgical.com

      Md. Zahangir Alam

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Loading...
Facebook Messenger for Wordpress
error: Content is protected !!